সব

সুবহে সাদিক কখন হয়- একটি বৈজ্ঞানিক পর্যালোচনা…

| বুধবার, ০৮ মে ২০১৯ | 708 বার পড়া হয়েছে
সুবহে সাদিক কখন হয়- একটি বৈজ্ঞানিক পর্যালোচনা…

সূর্য যখন পূর্ব দিগন্তের ১৮ ডিগ্রি নিচে অাসে তখন সূর্যের অালো অাকাশের বায়ুমণ্ডলের ধূলিকণা ও জলকণায় প্রতিফলিত(reflected), প্রতিসরিত(refracted) এবং বিস্তৃত (scattered)অবস্থায় ভূ- পৃস্টে পতিত হয়ে অাধো- অালো অাধো- অন্ধকার উষার সৃষ্টি করে।একটি অাবছা অালো কিছু সময় পূর্বাকাশকে উজ্জ্বল করে রাখে।এটাকে বলে জ্যোৈবতির্বিজ্ঞানিক উষা(astronomical morning twilight or down)।অাবার সূর্য যখন দিগন্তের ১২ ডিগ্রি নিচে অাসে তখন এটাকে নৌ- উষা( nautical morning twilight or down)বলে।অাবার সূর্য যখন দিগন্তের ৬ ডিগ্রি নিচে অাসে তখন বলা হয় সরকারি উষা( civil morning twilight or down)।এটা হল জ্যোতির্বিজ্ঞানের হিসাব।
ফজরের নামাজের সময় শুরু হয় সুবহে সাদিক উদিত হওয়া থেকে এবং সূর্য উদিত হওয়ার সূচনামূহুর্তে তা শেষ ।শরিয়তে এ সময় সম্পর্কে অবগতি লাভ করার মূলভিত্তি হচ্ছে চোখে দেখা। জ্যোতির্বিজ্ঞানের হিসাব নয়।তবে যদি বার বার নিরীক্ষণের পর জ্যোতির্বিজ্ঞানের হিসাবের শুদ্ধাশুদ্ধির ব্যাপারে পরিপূর্ণ অাস্হাশীল হওয়া যায়, তাহলে তা গ্রহণ করা এবং এর অালোকে তৈরিকৃত ক্যালেণ্ডারের সময়সূচি অনুযায়ী নামাজ অাদায় করতে কোন সমস্যা নেই।
সুবহে সাদিক এবং সূর্যোদয় উভয়টিই হচ্ছে প্রকাশ্য অালামত।মুসলিম বিশ্ব এ অালামতের ভিত্তিতেই রমজানে সাহরী শেষ করেন এবং বছর ব্যাপী ফজর অাদায় করেন।
মুসলিম জ্যোতির্বিজ্ঞানীরা যখন সুবহে সাদিকের সময়কে শাস্ত্রীয় হিসাবের ভিত্তিতে বর্ণনা করার ইচ্ছা করলেন তখন তারা গুরুত্বের সাথে চাক্ষুষ পর্যবেক্ষণ অব্যাহত রাখলেন।
মুসলিম জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের অধিকাংশই নিজেদের পর্যবেক্ষণের যে ফলাফল উল্লেখ করেছেন তা হল, সূর্য দিগন্তের ১৮ ডিগ্রি নিচে থাকতেই সুবহে সাদিক উদিত হয়।অর্থাৎ পূর্বে অামরা যে জ্যোতির্বিজ্ঞানীক উষার ( astronomical morning twilight or down) এর কথা উল্লেখ কেরেছি এটাই মূলত সুবহে সাদিক।
অাবার তাদের উল্লেখযোগ্য একটি অংশ ১৯ ডিগ্রি নিচে থাকতে সুবহে সাদিক উদিত হয় বলে মত দিয়েছেন। একদুজন ২০ ডিগ্রির কথাও উল্লেখ করেছেন। কেউ কেউ ১৭ ডিগ্রির কথাও বলেছেন।তবে এদুটি মত নিতান্ত ই দূর্বল। অাহলে ফনের কেউ তা গ্রহণ করেননি।

পূর্ববর্তী মুসলিম জ্যোতির্বিজ্ঞানীগণের বক্তব্য, ফুকাহায়ে কেরামের অামল,চাক্ষুস পর্যবেক্ষণ এবং অাধুনিক জ্যোতির্বিজ্ঞানের বিশ্লেশন অনুযায়ি সুবহে সাদিক সূর্য দিগন্তের ১৮ ডিগ্রি বা ১৯ ডিগ্রি নিচে থাকতেই উদিত হয়।১২ শ হিজরী পর্যন্ত এ মতের উপরই মুসলিম উম্মাহর অামল চলে অাসছে।
১৩৮৮ হিজরীর কোন এক সময় মুফতী রশীদ অাহমদ লুধিয়ানবী প্রথমবারের মত সূর্য দিগন্তের ১৫ ডিগ্রি নিচে থাকলে সুবহে সাদিক উদিত হয় বলে মত ব্যক্ত করেন।জুমহুর উলামায়ে কেরামের বিপরীতে নিজের একান্ত ব্যক্তিগত মতকে মুফতী সাহেব ইজমা বলে দাবি করেন এবং জুমহুরের ব্যক্তব্য ও উম্মতের মুতাওয়ারাছ অামলকে বিচ্ছিন্নতা এবং ইজমার পরিপন্তি বলে দাবি করেন।
মুফতী সাহেবের এ মতের ভিত্তি দুটি বিষয়ের উপর-
(১) মুশাহাদা বা নিজ চোখে দেখা, এ ক্ষেত্রে কথা হল, মুশাহাদার জন্য যে শর্তাদীর প্রয়োজন তা তাঁর মুশাহাদায় ছিলনা।অার জুমহুর উম্মাহর মুশাহাদার বিপরীতে তার মুশাহাদা দলিল হতে পারেনা।
(২) তার দাবি অনুযায়ী জ্যোতির্বিজ্ঞানীগণ নাকি এ ব্যপারে একমত,সূর্য দিগন্তের ১৮ ডিগ্রি নিচে থাকলে সুবহে কাযিবের সময় অার ১৫ ডিগ্রি নিচে থাকলে সুবহে সাদিকের সময় শুরু হয়।
এ ব্যপারে কথা হল,মুফতী সাহেবের এ কথা শতভাগ বাস্তবতা পরিপন্থী।
অামরা পূর্বে দেখেছি অাধুনিক জ্যোতির্বিজ্ঞানেও সূর্য দিগন্তের ১৮ ডিগ্রি নিচে থাকলে উষা( astronomical twilight) শুরু হয়।
অার পূর্ববর্তী ও পরবর্তী মুসলিম জ্যোতির্বিজ্ঞানীগণের কেউই এ কথা বলেননি, সূর্য দিগন্তের ১৫ ডিগ্রি নিচে থাকলে সুবহে সাদিক উদিত হয়।
নিচে মুসলিম জ্যোতির্বিজ্ঞানীদের কিছু বক্তব্য তুলে ধরা হল–
(১) অাব্দুর রহমান অাস সূফী( মৃত্যুঃ৩৭৬),তার মতে ১৮ ডিগ্রিতে সুবহে সাদিক উদিত হয়।
(২) অাল বাত্তানী( মৃত্যুঃ৩১৭) ১৮ ডিগ্রি।
(৩) অাল বেরুনী( মৃত্যুঃ৪৪০) ১৮ ডিগ্রি।
(৪) অায যারকালী( মৃত্যুঃ৪৯০) ১৮ ডিগ্রি।
(৫) নাসিরুদ্দিন তূসী( মৃত্যুঃ৬৭১) ১৮ ডিগ্রি।
(৬) অাবুল হাসান অালী ইবনু বাস অাল অাসলামী( মৃত্যুঃ৬৯৩) ১৮ ডিগ্রি।
(৭) ইবনুন নাজ্জার( মৃত্যুঃ৭৪৯) ১৮ ডিগ্রি।
(৮) শামসুদ্দিন অাল মিযযী মুহাম্মদ ইবনে অাহমাদ( মৃত্যুঃ৭৫০) ১৯ ডিগ্রি।
(৯) অাবু ইসহাক ইবরাহীম ইবনে ইয়াহিয়া অাত তুজীবী(মৃত্যুঃ৪৯৩) ১৮ ডিগ্রি।
(১০)ইবনে শাতির(মৃত্যুঃ৭৭৭) ১৯ ডিগ্রি।
(১১)জামালুদ্দীন অাল মারদানী( মৃত্যুঃ৮০৯) ১৮ ডিগ্রি।
(১২)কাযী যাদাহ(৮৯৯) ১৮ ডিগ্রি।
(১৩) অাবু অালী অাল হাসান ইবনে ঈসা,১৮ ডিগ্রি।
(১৪) ইবনুল মুফতি, ১৮ ডিগ্রি।
(১৫) ইবনুর রিকাম(৬৮৫), ১৯ ডিগ্রি।
(১৬)সিবত অাল মারদিনী(৯১২), ১৯ ডিগ্রি।
(১৭) উমর অাত তাওয়াবী(৮৫৮),১৮-১৯ডিগ্রি।
(১৮)অাল ওয়াফায়ী(৮৭৬), ১৯ডিগ্রি।
(১৯)অাত তিযিনী মুহাম্মদ ইবনে মুহাম্মদ (৯১১), ১৯ ডিগ্রি।
(২০)অাল অাখযারী অাব্দুর রহমান ইবনে মুহাম্মদ (৯৯৩), ১৮ ডিগ্রি।
(২১)ইয়াহইয়া অাল হাত্তাব(৯৯৫), ১৯ ডিগ্রি।
(২২)অাবু যায়েদ অাস সূসী(১০০৮), ১৮ ডিগ্রি।
(২৩)রমযান অাস সাফতী(১১৫৮), ১৯ ডিগ্রি।
(২৪)অাল কালবুনী(১২০৫), ১৯ ডিগ্রি।
(২৫)ইদরিস ইবনে ইসমাঈল রাগিব(১৩৪৭), ১৯ ডিগ্রি।
(২৬)অাব্দুল হামীদ মুরসী গাইস, ১৯ ডিগ্রি।
(২৭)ডঃ হুসাইন কামালুদ্দীন(১৯৮৭),১৮ ডিগ্রি।
(২৮)ইয়াসিন অাল ফাদানী(১৪১৩),১৯ ডিগ্রি।
(২৯)অাব্দুল ওয়াহহাব অাল ফাসী অাল মাররাকুশী(১৪৩২),১৮-১৯ ডিগ্রি।
এখানে শুধু উল্লেখযোগ্য কিছু মুসলিম জ্যোতির্বিজ্ঞানীর বক্তব্য তুলে ধরা হল। এছাড়া মুফতী সাহেবের পূর্বে মুসলিম উম্মাহর কেউই ১৫ ডিগ্রিতে সুবহে সাদিক উদিত হওয়ার কথা বলেনি।বরং মুসলিম জ্যোতির্বিজ্ঞানী,ফুকাহায়ে কেরাম এবং অাধুনিক বিভিন্ন ফিকহি বোর্ডের ফতোয়া ও মতানুযায়ী সূর্য দিগন্তের ১৮ বা ১৯ ডিগ্রি নিচে থাকতেই সুবহে সাদিক উদিত হয়।
এতএব মুফতী সাহেবের মতটি যে একটি স্পস্ট ভুল এতে কোন সন্দেহ নেই।



মন্তব্য করুন

comments

এ বিভাগের সর্বাধিক পঠিত

বহুমাত্রিক জীবন

১০ জুলাই ২০১৮ | 522 বার পড়া হয়েছে

ভাইরালের ভয়াবহ পরিণতি

১৮ এপ্রিল ২০১৯ | 380 বার পড়া হয়েছে

০২ নভেম্বর ২০১৮ | 312 বার পড়া হয়েছে

১৫ নভেম্বর ২০১৮ | 290 বার পড়া হয়েছে

বাস্তবের সৌন্দর্যই ধ্রুব নয়

১৯ নভেম্বর ২০১৮ | 274 বার পড়া হয়েছে

আপনি পৃথিবীর  উষ্ণতা কমাতে পারেন যে ৫টি উপায়ে

১১ অক্টোবর ২০১৮ | 226 বার পড়া হয়েছে

উপদেষ্টা সম্পাদক

হাফেজ মাওলানা সাহাদাত হোসাইন

মোহাম্মদ নুরে আলম

হাফেজ মাওলানা আব্দুল হাসিব চৌধুরী

লোকমান আহমেদ

প্রতিষ্ঠাতা সম্পাদক

চৌধুরী হাসান মাহমুদ

প্রধান সম্পাদক

গোলাম রব্বানী

নির্বাহী সম্পাদক

হাফিজুর রহমান নাহিদ

বার্তা সম্পাদক

তাজ উদ্দিন আহমাদ

বিভাগীয় সম্পাদক

শাহ মাসুম খাদেম

সিএম হাসান

সম্পাদনা সহযোগী

ফয়েজুল ইসলাম চৌধুরী

আশিকুর রহমান

এনামুল হাসান চৌধুরী

যোগাযোগ: উম আল ধম রোড, মাইজার, আল রাইয়্যান, কাতার। ফোন: +974.77664095, ই-মেইল: foursidenews@gmail.com

all right reserved

design and development by: webnewsdesign.com